সর্বশেষ শিরোনাম

‘ছোটখাটো যুদ্ধের জন্য ইসলামাবাদও প্রস্তুত’

Bookmark and Share
pic-23_264413
আবারও বাগ্‌যুদ্ধে ভারত ও পাকিস্তান
ভারত-পাকিস্তান সম্পর্কে উত্তেজনা বাড়ছে। দুই পক্ষের মধ্যে বাগ্‌যুদ্ধ শুরু হয়ে গেছে ইতিমধ্যে। আর এই যুদ্ধে বিরোধের কেন্দ্রবিন্দু সেই কাশ্মীর। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ গত বুধবার বলেছেন, পাকিস্তানিদের হৃদয়ের সঙ্গে মিশে আছে কাশ্মীর। নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর যে গোলাগুলি চলছে তা আন্তর্জাতিক শান্তির পক্ষে হুমকিস্বরূপ। তবে প্রধানমন্ত্রীর চেয়ে কয়েক কদম এগিয়ে দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেছেন, ভারতের নেতৃত্ব চাইলে পাকিস্তান ছোট বা দীর্ঘমেয়াদি লড়াইয়ের জন্য প্রস্তুত রয়েছে। এর আগে ভারতের সেনাপ্রধান বলেন, ছোটখাটো যুদ্ধের জন্য ভারতকে প্রস্তুত থাকতে হবে। মূলত তাঁর এ কথার জবাব দিতেই পাকিস্তানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী গতকাল বৃহস্পতিবার যুদ্ধের হুমকি দেন।

রেডিও পাকিস্তান গতকাল জানায়, প্রতিরক্ষামন্ত্রী খাজা মুহাম্মদ আসিফ বলেছেন, পাকিস্তান আঞ্চলিক শান্তিতে বিশ্বাসী। তবে কেউ উসকানি দিলে এর জবাব দিতে পুরোপুরি প্রস্তুত। ‘১৯৬৫ সালে আমাদের সেনাবাহিনী ভারতের লাহোর দখলের স্বপ্ন চুরমার করে দেয়। ভবিষ্যতে আবারও একই কাজ করবে।’ তিনি বলেন, ‘পাকিস্তান সেনাবাহিনী নিজ ভূখণ্ডে সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে লড়াই করছে। প্রয়োজন হলে বাইরের শত্রুদেরও তারা মোকাবিলা করতে পারবে।’

ভারতের সেনাপ্রধান জেনারেল দলবীর সিং গত মঙ্গলবার বলেন, ‘প্রয়োজনে সীমান্তে লড়াইয়ের জন্য প্রস্তুত ভারতের সেনাবাহিনী। ভবিষ্যতে যেকোনো লড়াই হবে দ্রুত ও স্বল্পমেয়াদি।’ ভারতের ইংরেজি দৈনিক দ্য হিন্দুতে জম্মু ও কাশ্মীর প্রসঙ্গে তাঁর উদ্ধৃতি দিয়ে এ বক্তব্য প্রকাশ করা হয়।

এদিকে গত বুধবার পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শরিফ পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত আজাদ জম্মু ও কাশ্মীরে একগুচ্ছ উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন করতে গিয়ে সাম্প্রতিক সময়ে সীমান্তে ঘটা গোলাগুলি প্রসঙ্গে বলেন, ‘আমাদের ধৈর্যকে দুর্বলতা ভাববেন না। আমরা শান্তি চাই-এটাই আমাদের শক্তি।’ তিনি আরো বলেন, সাম্প্রতিক গোলাগুলিতে যে বেসামরিক লোকজন মারা পড়েছে তা আন্তর্জাতিক বিবেককে নাড়া দিয়ে গেছে। পাকিস্তান এ ব্যাপারে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের মনোযোগ আকর্ষণের চেষ্টা চালিয়ে যাবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমরা ভুলে যেতে পারি না, যাঁরা মারা গেছেন তারা নিয়ন্ত্রণ রেখার কাছাকাছি বসবাস করতেন। দেশের জমি থেকে সন্ত্রাস পুরোপুরি নিশ্চিহ্ন না হওয়া পর্যন্ত পাকিস্তান চেষ্টা চালিয়ে যাবে বলে তিনি উল্লেখ করেন। এ লক্ষ্যে জারব-ই-আজব নামের যে অভিযান চলছে তাকে সফল বলেও দাবি করেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী এদিন ২৭০ হাজার কোটি রুপি ব্যয়ে মোট ৪২টি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন করেন।

সূত্র : এপিপি, দ্য ডন।

 

Bookmark and Share

Comments are closed.